1. admin@drstisimana.com : admin :
শুক্রবার, ২২ অক্টোবর ২০২১, ০১:১৭ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজঃ
কুমিল্লাতে কোরআন অবমাননার ঘটনায় রাণীশংকৈলে প্রতিবাদ মিছিল ও সভা অনুষ্ঠিত। রামচন্দ্রপুর মেম্বার পদপ্রার্থী জাকারিয়া খানকে সকলে চায়। আড়ানী বিট পুলিশিং এর আয়োজনে সম্প্রীতি সমাবেশ অনুষ্ঠিত। রেকর্ড জয়ে বিশ্বকাপের সুপার টুয়েলভে বাংলাদেশ।। ফাইতং সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষার্থে বিট পুলিশ মতবিনিময় সভা। কবি মোঃ রাসেল হাসান এঁর কবিতা ‘মনের ভিটা’। বিনোদপুর ইউনিয়ন বাসী নৌকার প্রার্থী হিসেবে শরীফুল মাষ্টারকে চান। উলিপুরে ক্ষতিগ্রস্থ মন্দির ও পরিবারের মাঝে চেক বিতরণ। জলঢাকায় ডাভ সেলফ এস্টিম প্রকল্পের অবহিতকরন সভা অনুষ্ঠিত। সনাতন সম্প্রদায়ের ওপর হামলার প্রতিবাদে গাজীপুরে বিক্ষোভ।

নওগাঁয় বিভিন্ন এলাকা থেকে ধান কাটা শ্রমিক আসা শুরু।

অহিদুল ইসলাম, স্টাফ রিপোর্টারঃ
  • আপডেট সময়: বৃহস্পতিবার, ২২ এপ্রিল, ২০২১
  • ৬১ বার পড়া হয়েছে:

পুলিশের ব্যবস্থাপনায় নওগাঁয় ধান কাটা ও মাড়াইয়ের জন্য দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে ধান কাটার শ্রমিক আসতে শুরু করেছে। বৃহস্পতিবার ও বুধবার গাইবান্ধা, দিনাজপুর ও নীলফামারী থেকে পাঁচ শতাধিক কৃষিশ্রমিক নওগাঁয় পাঠানো হয়েছে।বুধবার বিকেল সাড়ে পাঁচটার দিকে পুলিশের ব্যবস্থাপনায় গাইবান্ধা থেকে ২১২ জন নওগাঁয় যান। বৃহস্পতিবার সকালে দিনাজপুরের বিরামপুর ও নীলফামারীর ডোমার উপজেলা থেকে আরও ২৬৫ জন আসে। বাইরের জেলা থেকে আসা শ্রমিকদের সঠিক গন্তব্যে পৌঁছে দেওয়ার জন্য নওগাঁ-বগুড়া মহাসড়কের সান্তাহার রোড মোড়ে কৃষিশ্রমিক সহায়তা নিয়ন্ত্রণ কক্ষ করেছে নওগাঁ জেলা পুলিশ। বাইরে থেকে আসা এই কৃষি শ্রমিকদের নিয়ন্ত্রণ কক্ষে থার্মাল মেশিনের সাহায্যে শরীরের তাপমাত্রা পরিমাপ করা হয়। করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ থেকে সুরক্ষার জন্য তাঁদের মধ্যে মাস্ক ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ করেন পুলিশ সদস্যরা। পুলিশ সুপার বলেন, দেশের অন্যতম বোরো উৎপাদনকারী জেলা নওগাঁ। প্রতি বছর আমন ও বোরো মৌসুমে জেলার অভ্যন্তরীণ কৃষি শ্রমিক ছাড়াও বাইরের জেলার আরও ৭০-৮০ হাজার শ্রমিক প্রয়োজন হয় এ জেলায়। যে সব জেলায় ধান উৎপাদন কম হয়, ওই সব জেলার কৃষি শ্রমিকেরা এ জেলায় ধান কাটতে আসেন। কিন্তু করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে গত বছর বিশেষ ব্যবস্থাপনায় এ জেলায় বাইরের জেলা থেকে ধান কাটা শ্রমিক আনা হয়েছিল। এবারেও বিভিন্ন জেলা পুলিশের উদ্যোগে নওগাঁ জেলায় ধান কাটা শ্রমিক আনার ব্যবস্থা করা হয়েছে। গাইবান্ধা থেকে ২১২ জন শ্রমিক আসার মধ্য দিয়ে এ জেলায় বাইরে থেকে শ্রমিক আনার কার্যক্রম শুরু হলো। আগামী ছয়-সাত দিনের মধ্যে গাইবান্ধা, কুড়িগ্রাম, লালমনিহাট, সিরাজগঞ্জ, পাবনাসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে ৬০ থেকে ৭০ হাজার কৃষি শ্রমিক এ জেলায় আসার কথা রয়েছে।নওগাঁ কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক শামসুল ওয়াদুদ বলেন, চলতি বোরো মৌসুমে চার লাখ ২৫ হাজার ৪০ জন কৃষি শ্রমিকের প্রয়োজন। এর মধ্যে স্থানীয় ভাবে শ্রমিক রয়েছেন তিন লক্ষ ৪৬ হাজার ১৮৫ জন। অর্থাৎ আরও ৭৮ হাজার ৮৫৫ জন শ্রমিক অন্য জেলা থেকে নিয়ে আসতে হবে। চাহিদা অনুযায়ী কৃষি শ্রমিক দেশের অন্যান্য জেলা থেকে নিয়ে আসার জন্য পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য ইতোমধ্যে জেলা সমন্বয় সভায় আলোচনা হয়েছে। বাইরের কৃষি শ্রমিক নিয়ে আসার কাজ চলছে। আশা করছি, ধান কাটা শ্রমিকের কোনো সংকট হবে না।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
আমাদের এখান থেকে কপি করা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ এবং আমাদের এখানে প্রচারিত সংবাদ সম্পূর্ণ আমাদের প্রতিনিধিদের কাছ থেকে পাওয়া। কোন প্রকার মিথ্যা নিউজ হলে তার জন্য কর্তৃপক্ষ দায়ী থাকবে না সম্পূর্ণ দায়ী থাকিবে নিউজ পেরন কারী সাংবাদিক। (মানবিক দৃষ্টি সীমানা ফাউন্ডেশন এর একটি প্রতিষ্ঠান) 
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: FT It