1. admin@drstisimana.com : admin :
বৃহস্পতিবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২১, ১২:৪৩ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজঃ
মুন্সীগঞ্জে পানের দাম কমে যাওয়ায় চাষীদের মাথায় হাত। স্ত্রীর মামলায় সওজের প্রকৌশলী ঝিনাইদহ র‌্যাবের হাতে আটক। কাল থেকে এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা। রাঙামাটির কাপ্তাই উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হলেন বির্দশন বড়ুয়া। ঐতিহ্যবাহী সংগঠন ‘ব্লাড ডোনার্স সোসাইটি ভালুকা’ এর প্রতিষ্ঠা বার্ষিকিতে ব্যাপক প্রস্তুতি। বুড়িগোয়ালিনী নৌকার প্রার্থী সুন্দরবন প্রেসক্লাবে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় সভা। শ্রীপুর প্রেসক্লাবের নির্বাচনে নতুন সভাপতি আঃ লতিফ, সাধারণ সম্পাদক জামাল উদ্দিন। ছেলে কে ভর্তি করাতে এসে ট্রেনে কাটা পড়ে প্রাণ গেল পিতার। মহাদেবপুরে নির্বাচনী আচরণবিধি ও আইনশৃঙ্খলা বিষয়ক সভা অনুষ্ঠিত। নেত্রকোনায় দাদন ব্যবসায়ী ও অপসাংবাদিকতার বিরুদ্ধে সাংবাদিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত।

লকডাউনে শ্রমিক সংকটে বিপাকে পরেছে নওগাঁর কৃষকরা।

অহিদুল ইসলাম, স্টাফ রিপোর্টারঃ
  • আপডেট সময়: সোমবার, ২৬ এপ্রিল, ২০২১
  • ৭০ বার পড়া হয়েছে:

 

লকডাউনের মধ্যে শ্রমিক সংকটে ধান কাটা ও মাড়াইসহ ঘরে তুলতে বিপাকে পড়েছেন নওগাঁর কৃষকরা।

ইতিমধ্যে ধান কাটা শুরু হয়েছে। সময় মতো ধান কেটে ঘরে তুলতে না পারলে ঝড়বৃষ্টিতে ক্ষতির শঙ্কায় উৎকণ্ঠিত তারা। চাহিদার তুলনায় শ্রমিক কম হওয়ায় স্থানীয় শ্রমিকদের মজুরিও বেশি পড়ছে বলে চাষীদের মত।

নওগাঁ জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে বাইরের কৃষি শ্রমিক আনার উদ্দ্যোগ নেওয়া হলেও আশানুরূপ শ্রমিক আসেনি বলে জানিয়েছে কৃষকরা।

স্থানীয় চাষীরা জানান, জেলায় বোরো ধান কাটা মাড়াইয়ে স্থানীয় প্রায় সাড়ে তিন লাখ শ্রমিক ছাড়াও জেলার বাইরের আরও এক লাখ পাঁচ হাজার শ্রমিকের প্রয়োজন হয়। এর বিপরীতে গত কয়েকদিনে বাইরে থেকে কৃষি শ্রমিক এসেছে মাত্র পাঁচ হাজার, যা প্রয়োজনের তুলনায় অতি নগণ্য।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর নওগাঁর উপ-পরিচালক মোঃ শামছুল ওয়াদুদ জানান, জেলায় বোরো ধান কাটা মাড়াইয়ে মোট সাড়ে চার লাখ কৃষি শ্রমিকের প্রয়োজন। অভ্যন্তরীণ শ্রমিক বাদ দিয়ে জেলায় বাইরের কৃষি শ্রমিকের প্রযোজন এক লাখ পাঁচ হাজার। কিন্তু করোনার সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় লকডাউনের কারণে বাস, ট্রেন ও অন্যান্য গণপরিবহন বন্ধ থাকায় স্বাভাবিকভাবে জেলার বাইরে গাইবান্ধা, লালমনিরহাট, নীলফামারী, কুড়িগ্রাম, দিনাজপুর, কুষ্টিয়া, ভেড়ামারা, যশোরসহ বিভিন্ন এলাকার শ্রমিক আসতে পারছে না।
তবে চাষীদের যোগাযোগের পরিপ্রেক্ষিতে জেলা প্রশাসনের বিশেষ ব্যবস্থাপনায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে গত কয়েকদিনে মাত্র পাঁচ হাজার শ্রমিক ধান কাটতে এসেছে বলে তিনি জানান।

শামছুল ওয়াদুদ আরও জানান, জেলায় এবছর এক লাখ ৮০ হাজার ৬২৪ হেক্টর জমিতে বোরো রোপনের লক্ষমাত্রা ধার্য করা হয়। কিন্তু রোপা আমনে ভালো দাম পওয়ায় লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে অতিরিক্ত সাড়ে সাত হাজার হেক্টর জমিতে বোরো রোপন করা হয়েছে। এবার ধানের ফলন খুব ভালো এবং প্রতি বিঘায় ধান পাওয়া যাচ্ছে ২০ থেকে ২৫ মন হারে। কোনো প্রাকৃতিক দুর্যোগ না হলে এবং সময়মত ধান ঘরে তুলতে পারলে প্রায় ১২ লাখ মেট্রিক টন ধান উৎপাদন হবে বলে আশা কৃষি বিভাগের। বর্তমানে প্রতিমন নতুন ধান বাজারে ৯শ থেকে ১ হাজার ৫০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

বাইরে থেকে আসা শ্রমিকরা বলছেন, এবার নওগাঁয় বাস কিংবা মাইক্রোবাস যোগে নওগাঁয় আসতে দ্বিগুণ ভাড়া গুনতে হচ্ছে। এ কারণে বোরো চাষিদেরও গত বছরের চেয়ে প্রতিবিঘা ধান কাটা-মাড়াইয়ে ৫শ থেকে এক হাজার টাকা অতিরিক্ত টাকা লাগছে।

নওগাঁ নওহাটা মোড় এলাকার বোরো চাষী শহিদুল ইসলাম বলেন, এখন পর্যন্ত বাইরের শ্রমিক না আসায় প্রতি বিঘায় পাঁচশ টাকা বেশি মজুরিতে চার হাজার টাকায় কাটতে হচ্ছে স্থানীয় শ্রমিক দিয়ে। বর্তমানে জেলার হাটবাজারে প্রতিমন ভিজাধান নয়শ থেকে এক হাজার ৫০ টাকা দরে বেচাকেনা হচ্ছে জানিয়ে তিনি বলেন, ধানের দাম এর নিচে এলে বোরো চাষিরা ক্ষতিগ্রস্ত হবে।

মহাদেবপুরের বোরো চাষি রফিকুল ইসলাম বলেন, এবার গত বছরের তুলনায় বোরোর ফলন একটু বেশি হচ্ছে। কিন্ত প্রয়োজনীয় শ্রমিক না থাকায় পাকা ধান কেটে ঘরে তোলা সম্ভব হচ্ছে না। সময়মত জেলায় বাইরের শ্রমিক না এলে বোরো কাটা মাড়াইয়ে চাষিদের বিড়ম্বনাসহ ঝড়বৃষ্টিতে আর্থিক ক্ষতির শঙ্কা রয়েছে।

পুলিশ সুপার আব্দুল মান্নান বি পি এম বলেন, স্বাস্থ্যবিধি মেনে বিশেষ ব্যবস্থায় যোগাযোগ করে নিয়ে আসা বাইরের শ্রমিকদের আমরা স্বাগত জানাচ্ছি। পাশাপাশি জেলার শ্রমিকদের এক থানা থেকে অন্য থানায় পুলিশ নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় পৌঁছানোর ব্যবস্থা নিয়েছে।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
আমাদের এখান থেকে কপি করা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ এবং আমাদের এখানে প্রচারিত সংবাদ সম্পূর্ণ আমাদের প্রতিনিধিদের কাছ থেকে পাওয়া। কোন প্রকার মিথ্যা নিউজ হলে তার জন্য কর্তৃপক্ষ দায়ী থাকবে না সম্পূর্ণ দায়ী থাকিবে নিউজ পেরন কারী সাংবাদিক। (মানবিক দৃষ্টি সীমানা ফাউন্ডেশন এর একটি প্রতিষ্ঠান) 
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: FT It