1. admin@drstisimana.com : admin :
বৃহস্পতিবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২১, ০৬:৪৬ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজঃ
মুন্সীগঞ্জে পানের দাম কমে যাওয়ায় চাষীদের মাথায় হাত। স্ত্রীর মামলায় সওজের প্রকৌশলী ঝিনাইদহ র‌্যাবের হাতে আটক। কাল থেকে এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা। রাঙামাটির কাপ্তাই উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হলেন বির্দশন বড়ুয়া। ঐতিহ্যবাহী সংগঠন ‘ব্লাড ডোনার্স সোসাইটি ভালুকা’ এর প্রতিষ্ঠা বার্ষিকিতে ব্যাপক প্রস্তুতি। বুড়িগোয়ালিনী নৌকার প্রার্থী সুন্দরবন প্রেসক্লাবে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় সভা। শ্রীপুর প্রেসক্লাবের নির্বাচনে নতুন সভাপতি আঃ লতিফ, সাধারণ সম্পাদক জামাল উদ্দিন। ছেলে কে ভর্তি করাতে এসে ট্রেনে কাটা পড়ে প্রাণ গেল পিতার। মহাদেবপুরে নির্বাচনী আচরণবিধি ও আইনশৃঙ্খলা বিষয়ক সভা অনুষ্ঠিত। নেত্রকোনায় দাদন ব্যবসায়ী ও অপসাংবাদিকতার বিরুদ্ধে সাংবাদিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত।

নওগাঁয় ধানের বাম্পার ফলন, মূল্য কমের কারনে দিশেহারা সাধারন কৃষকরা।

অহিদুল ইসলাম, স্টাফ রিপোর্টারঃ
  • আপডেট সময়: বুধবার, ১২ মে, ২০২১
  • ২৭ বার পড়া হয়েছে:

 

নওগাঁয় ধানের বাম্পার ফলন, তবে বাজারে ধানের মূল্য কমের কারনে দিশেহারা হয়ে পরেছেন কৃষকরা।

সক্রিয় সেন্ডিকেট, শস্য ভান্ডার হিসাবে খ্যাত নওগাঁয় চলতি ইরি বোরো ধানের নায্য মূল্য থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন কৃষকরা। ধান আড়ৎদার, ধান চাতাল ব্যবসায়ী, মিল ব্যবসায়ী ও মাঠ পর্যায়ের ধান ব্যবসায়ী সিন্ডিকেট এর কারনে হটাৎ করেই গত সপ্তাহ থেকে প্রকার ভেদে প্রতিমনে ১৫০ থেকে ২শত টাকা ধানের দাম কমে যাওয়ার কারনে কৃষকরা হতাশ হয়ে পড়েছেন।

এক সপ্তাহ আগে যে আধা শুকনো ধান প্রকার ভেদে ৯৫০ থেকে ১,০৫০/১০৭০ টাকা দরে কেনাবেচা হয়েছে সেই ধান-ই মাত্র সপ্তাহের ব্যবধানে ৮ শত টাকা, এমনকি ৭৮০ টাকা মূল্যেও বিক্রি করতে বাধ্য হচ্ছেন কৃষকরা।

নওগাঁর মহাদেবপুর উপজেলার চৌমাশিয়া গ্রামের শহিদুল ইসলাম জানান, আমার লস্বা জিরা ধান প্রথমে ৯৫০ টাকা মন কিনতে চাইলেও পরের দিন সেই ধান প্রতিমন ৯ শত টাকা দরে আমি বিক্রি করতে বাধ্য হয়েছি, তিনি আরো বলেন, আমি বিক্রির একদিন পর আমার বড় ভাই আমজাদ একই ধান বিক্রি করতে গেলে ধান ব্যবসায়ীরা প্রথমে ৭৮০ পরে ৮ শত টাকা প্রতিমন দাম করেন যার কারনে ধান বিক্রি না করে ঘড়ে তুলে রাখতে বাধ্য হয়েছেন আমার ভাই। একই গ্রামের কৃষক সাজ্জাদ হোসেন মন্ডল, মোজাহারুল সহ এলাকার অনেক কৃষক জানান, মাথার ঘাম পায়ে ফেলে আমাদের চাষকৃত ধান কাটা-মাড়াই শেষে বিক্রি করতে গিয়ে প্রথমে একটু ভালো দাম পেলেও বর্তমানে ঈদকে সামনে রেখে সিন্ডিকেট এর মাধ্যমে প্রতি মনে ১৫০ থেকে ২ শত টাকা কমে কেনাবেচা হচ্ছে জানিয়ে তারা আরো বলেন, এভাবেই ঈদ এর সুযোগকে কাজে লাগিয়ে সিন্ডিকেট এর সেটিংকৃত এলাকা ভিত্তিক মাঠ পর্যায়ের ধান ক্রেতারা কৃষকদের লোকসানের মুখে ঠেলে দিচ্ছেন, আর আমরাও কিটনাশক ও সার দোকানীর পাওনা সহ ঈদের কেনাকাটা করতে এক প্রকার কম মূল্যে ধান বিক্রি করতে বাধ্য হচ্ছি।

এমনও অভিযোগ রয়েছে, আকাশে মেঘ দেখা দিলে বা বৃষ্টি হলেই সিন্ডিকেটের মাধ্যমে ধান বাঁকিতে বিক্রি করতেও বাধ্য হচ্ছেন কৃষকরা। আর ধান সিন্ডিকেটের সদস্যরা (মাঠ পর্যায়ের ধান ক্রেতারা) এমন ভাবেই কৃষকদের বে-কায়দায় ফেলে তুলনা মূলক অনেক কম মূল্যে ধান কিনে স্টক করছেন বলেও অভিযোগ রয়েছে। এমনকি সিন্ডিকেটের হয়ে বিভিন্ন এলাকার ধনী কৃষকরাও কম মূল্যে ধান কিনে স্টক করছেন বলেও অভিযোগ। স্টককৃত ধান গুলো ঈদের পর বেশীমূলে বিক্রি করে লাভমান হবেন ব্যবসায়ী ও ধনী কৃষকরা অপরদিকে লোকসানের মুখে পড়ছেন মধ্যবিত্ত কৃষকরা। বিশেষ করে মধ্যবিত্ত কৃষকরা তাদের দেনা পাওনা পরিশোধ করতে কম মূল্যে ধান বিক্রি করতে বাধ্য হচ্ছেন ও সেই সাথেই লোকসানের মুখে পড়ছেন। অপরদিকে সিন্ডিকেটের ধান ক্রয় কারীরা লাভমান হচ্ছেন।

প্রকৃত কৃষক যেন ধানের নায্য মূল্য পান সে জন্য সেন্ডিকেট ভাঙ্গার জন্য নিয়মিত ধানের হাট, ধানের আড়ৎ সহ বাজার মনিটরিং কমির্টি গঠন পূর্বক প্রয়োজনীয় আশু পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য প্রশাসনের দ্রুত আশু পদক্ষেপ নেওয়া প্রয়োজন বলেই মনে করছেন সচেতন মহল।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর নওগাঁর উপ-পরিচালক সামছুল ওয়াদুদ জানান, জেলায় এ বছর ১ লাখ ৮০ হাজার ৬২৪ হেক্টর জমিতে বোরো ধান রোপণের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়। কিন্তু বিগত রোপা আমনে ধানের ভালো দাম পাওয়ার কারনে লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে অতিরিক্ত আরও সাড়ে ৭ হাজার হেক্টর জমিতে বোরো ধান রোপণ করা হয়েছে এবং চলতি বোরো ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে। তবে কাটা ও মাড়াইয়ের মাঝামাঝি সময় থেকে বাজারে তুলনা মূলক ধানের মূল্য কিছুটা কমে যাওয়ার কারনে বিশেষ করে মধ্যবিত্ত কৃষকরা কিছুটা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
আমাদের এখান থেকে কপি করা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ এবং আমাদের এখানে প্রচারিত সংবাদ সম্পূর্ণ আমাদের প্রতিনিধিদের কাছ থেকে পাওয়া। কোন প্রকার মিথ্যা নিউজ হলে তার জন্য কর্তৃপক্ষ দায়ী থাকবে না সম্পূর্ণ দায়ী থাকিবে নিউজ পেরন কারী সাংবাদিক। (মানবিক দৃষ্টি সীমানা ফাউন্ডেশন এর একটি প্রতিষ্ঠান) 
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: FT It